নন-লাইফ বীমার কমিশন; না এজেন্টের না গ্রাহকের

Bank Bima Shilpa    ০৪:২২ পিএম, ২০২১-০৪-১৭    209


নন-লাইফ বীমার কমিশন; না এজেন্টের না গ্রাহকের

শেখ মোঃ সরফরাজ হোসেন, এসিএস
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, স্বাধীনতা যুদ্ধের সর্বাধিনায়ক, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, একজন দার্শনিক ও তিনি শুধু রাজনীতিবিদই ছিলেন না, তিনি বীমা শিল্পের উচ্চ পর্যায়ের একজন বীমা ব্যক্তিত্বও ছিলেন। তাই, জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা, বাংলাদেশের উন্নয়নের রূপকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বীমার গুরুত্ব অনুধাবন করে পুরাতন বীমা আইনকে ঢেলে সাজিয়ে নতুন বীমা আইন, ২০১০ প্রণয়ন করেন। পাশাপাশি প্রণয়ন করেন বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০। এরপর বীমা খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে ২০১১ সালে অধিদপ্তর বিলুপ্ত করে প্রতিষ্ঠা করেন ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ’।
কিন্তু পরিতাপের বিষয়, কমিশন বানিজ্য এবং বীমা শিল্পে অসুস্থ প্রতিযোগিতা এখনও কাটেনি। বীমা অধিদপ্তর থেকে জারিকৃত ১০/০২/২০০২ ইং তারিকের প্রঃবীঃনিঃ১৫/১/৯৬-২৪২ নম্বর আদেশের মাধ্যমে সাধারন বীমা ব্যবসায় কমিশন পরিশোধ ১লা মার্চ/২০০২ ইং তারিখ থেকে রহিত করা হলো মর্মে জানিয়ে নির্বাহী আদেশটি যথাযথভাবে পালনের জন্য সকল বেসরকারী সাধারন বীমা কোম্পানীকে নির্দেশ প্রদান করা হয়। অতপর, বীমা অধিদপ্তরের সার্কুলার নং-প্রঃবীঃনিঃ-১৫/১/৯৬-১৪০৬, তারিখের মাধ্যমে সাধারন বীমা ব্যবসার উপর কমিশন প্রদান ব্যবস্থা পুনরায় প্রবর্তন করা হয়েছে এবং উহা ২৬/০৭/২০০৫ তারিখ থেকে কার্যকর হয়েছে। সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়, বীমা আইন, ১৯৩৮ এর ৪০এ ধারায় (২) ও (৩) উপধারায় অগ্নি ও অন্যান্য শ্রেনীর সংগৃহীত বীমা ব্যবসার প্রিমিয়ামের উপর শতকরা ১৫% হারে এবং নৌ-শ্রেনীর উপর শতকরা ১০% হারে সংশ্লিষ্ট এজেন্ট/এমপ্লয়ার অব এজেন্ট-কে কমিশন প্রদানের বিধান রয়েছে। তবে এজেন্ট/এমপ্লয়ার অব এজেন্ট এর বাৎসরিক প্রিমিয়াম আয়ের পরিমান নূন্যতম ১০০,০০০/- হলে সংগৃহীত প্রিমিয়ামের উপর আরো ৫% হারে কমিশন/ওভাররাইডিং কমিশন কিংবা রিমিউনারেশন আকারে প্রদান করা যায়।
পরবর্তীতে প্রবর্তিত, বীমা আইন, ২০১০ এর ৫৮(১) ধারার বিধানে বলা হয়,“কোন নন-লাইফ বীমা কোম্পানি বীমা ব্যবসা অর্জন বা সংগ্রহের উদ্দেশ্যে বীমা এজেন্ট বা এজেন্ট নিয়োগকারী বা ব্রোকার ব্যতীত অন্য কাহাকেও প্রিমিয়ামের উপর শতকরা হারে পারিশ্রমিক বা পারিতোষিক পরিশোধ করিবে না।” উক্ত ধারায় কমিশনের পদ্ধতি সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ না থাকার কারনে, বীমা ব্যবসা আহরনে কোন কোন বীমাকারী প্রতিষ্ঠান তাদের খেয়ালমত বিভিন্ন ফরমেটে কমিশন প্রদানসহ প্রিমিয়ামের সাথে সমন্বয় করা শুরু করেন। বীমা শিল্পের সার্বিক উন্নয়নের স্বার্থে, নিয়ন্ত্রন পদ্ধতির উন্নতি এবং বর্তমান কমিশন পদ্ধতির অব্যবস্থাপনা দূর করার জন্য  বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ গত ১৫ জানুয়ারী ২০১২ইং তারিখে একটি সার্কুলার জারি করে যা ১লা মার্চ ২০১২ সন হতে কার্যকর করা হয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়,“কোন অবস্থাতেই বীমা কোম্পানীর পলিসি অথবা কভার নোটের প্রিমিয়ামের টাকা কমিশনের টাকার সঙ্গে অথবা অন্য কোন প্রদেয় টাকার সঙ্গে সমন্বয় করা যাবে না। তবে প্রিমিয়ামের বিপরীতে কোন কমিশন প্রদেয় থাকলে তা অবশ্যই লাইসেন্সধারী বীমা প্রতিনিধির বা ব্রোকারের নামে একাউন্ট পেয়ী চেকের মাধ্যমে প্রদান করতে হবে। আবার আইডিআরএ থেকে নিবন্ধন নেওয়া প্রতিনিধি বা ব্রোকার ছাড়া কেউ এই কমিশন পাবে না।”
কিন্তু আবারও সেই পরিতাপ। অনিয়ন্ত্রিত কমিশন বানিজ্য এবং লাগামহীন প্রতিযোগিতা নিয়ে আসে বীমা শিল্পে অসম সংস্কৃতি। তাই, বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোশিয়েশন কর্তৃক গত ৫ই মার্চ ২০১২ তারিখের সভায় সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়, আইডিআরএ দ্বারা এজেন্ট কমিশনের হার নির্ধারণ এবং এজেন্ট নিয়োগের ক্ষেত্রে নতুন বিধি / বিধান প্রণয়ন না করা পর্যন্ত নন-লাইফ বীমা ব্যবসায় কোন কমিশন প্রদান করা হবে না। বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোশিয়েশন এর উক্ত সিদ্ধান্তকে তোয়াক্কা না করে কতিপয় কর্মকর্তা কমিশনকে নিয়ে যান অতিমাত্রায়। পুনরায়, গত ০১/০৪/২০১২ইং তারিখে কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সার্কুলার নং- নন-লাইফ-৩২/২০১২ জারি করা হয়। সেখানে সুস্পষ্টভাবে কমিশনের হার উল্লেখ করে দেয়া হয়। “বাংলাদেশে কোন নন-লাইফ বীমা পলিসি ইস্যু করার ক্ষেত্রে কোন বীমাকারী পরিশোধযোগ্য প্রিমিয়ামের পনের শতাংশের (১৫%) অধিক কমিশন অথবা অন্য কোন প্রকার পারিশ্রমিক কোন বীমা এজেন্টকে প্রদান অথবা প্রদানের চুক্তি এবং কোন বীমা এজেন্ট পরিশোধযোগ্য প্রিমিয়ামের পনের শতাংশের অধিক কমিশন অথবা অন্য কোন প্রকার পারিশ্রমিক গ্রহণ করতে পারবে না”।
নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও বীমা মালিকদের মধ্যে মত পার্থক্য দেখা দেয়ার কারনে সার্কুলারটি সম্পূর্নরূপে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। অসুস্থ প্রতিযোগিতায় নেমে কোন কোন কোম্পানীর কারনে কর্তৃপক্ষের বেধে দেয়া ১৫% এজেন্ট কমিশনের হার গিয়ে দাড়াঁয় ৭০% পর্যন্ত যা এজেন্টের বদলে চলে যায় গ্রাহকদের পকেটে। ফলে, গত ১৩/০৯/২০১২ইং তারিখে কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সার্কুলার নং নন-লাইফ-৩৪/২০১২ জারি করা হয়। সেখানে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে এভাবে, “বীমা আইন, ২০১০ (২০১০ সনের ১৩ নং আইন) এর ৫৮(১) ধারার প্রতি সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ পূর্বক অবহিত করা যাইতেছে যে, উক্ত ধারার শর্তাবলীর ব্যত্যয় ও লঙ্ঘন, যথা- বীমা ব্যবসা অর্জন বা সংগ্রহের উদ্দেশ্যে বীমা এজেন্ট বা এজেন্ট নিয়োগকারী বা ব্রোকার বহির্ভূত সাধারণ কর্মকর্তা/ কর্মচারীকে প্রিমিয়ামের উপর শতকরা হারে বেতন প্রদান, কর্তৃপক্ষের গোচরীভূত হইয়াছে। বীমা খাতের শৃঙ্খলা, স্বচ্ছতা ও উন্নয়নের স্বার্থে এই ধরনের ব্যত্যয় ও লঙ্ঘন কাম্য নয়।”
এরপর অতিবাহিত হল ৭টি বছর। এরই মধ্যে কমিশন গিলে ফেলার উপক্রম প্রায় পুরা প্রিমিয়ামটাকেই। এদিকে সরকারের চাক্ষুস উপস্থিতি বীমা শিল্পে। সে লক্ষ্যে অতিরিক্ত কমিশন প্রদানের উৎসমূখ বন্ধের নিমিত্তে জারি করা হল সার্কুলার নং- নন-লাইফ ৬১/২০১৯ গত ৩০ এপ্রিল ২০১৯ইং তারিখে এবং সার্কুলার নং- নন-লাইফ ৬২/২০১৯ গত ০৩ জুন ২০১৯ইং তারিখে। এছাড়াও সার্কুলার নং- নন-লাইফ ৬৪/২০১৯ গত ০২ জুলাই ২০১৯ইং তারিখে এবং পরবর্তিতে উক্ত সার্কুলারকে বর্ধিত করে জারি হল আরেকটি সার্কুলার নং- নন-লাইফ ৬৮/২০১৯ গত ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং তারিখে। উক্ত সার্কুলার দ্বয়ের বিষয় ছিল, নন-লাইফ বীমা কোম্পানীসমূহের আর্থিক ব্যবস্থাপনা প্রসঙ্গে এবং উদ্দেশ্য ছিল, বীমা গ্রাহকগণের যথাযথ স্বার্থ সংরক্ষনের নিমিত্তে বীমা কোম্পানীসমূহে Good Governance তথা সুদৃঢ় অভ্যন্তরীন নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থা নিশ্চিত করনের লক্ষ্যে কতিপয় পদক্ষেপ গ্রহন করা। উক্ত পদক্ষেপসমূহে কিছু সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য বিরাজমান; লুক্কায়িত ব্যাংক হিসাব বন্ধকরন, অনিয়ন্ত্রিত কমিশন প্রদান বন্ধকরন, সর্বোপরি সরকারের রাজস্ব ফাঁকি প্রতিরোধ করা।
সার্কুলার নং- নন-লাইফ ৬২/২০১৯ এর প্রেক্ষিতে বিআইএ তাদের ১৯ জুন ২০১৯ইং তারিখে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উল্লেখ করেন, অতীতের সমস্ত রেকর্ডকে ছাপিয়ে যাওয়া অতিরিক্ত কমিশন নন-লাইফ বীমা কোম্পানীসমূহকে অত্যন্ত দুর্বল পর্যায়ে দাঁড় করিয়েছে। আইডিআরএ অতিরিক্ত কমিশনকে অর্থ পাচারের কার্যক্রম হিসাবে ঘোষণা করার ক্ষেত্রে দ্বিধা করবে না। উক্ত সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, আইডিআরএ কর্তৃক জারিকৃত ০৩ জুন ২০১৯ তারিখের সার্কুলার নং নন-লাইফ ৬২/২০১৯ সকল নন-লাইফ বীমা কোম্পানী পূর্ণরূপে অনুসরণ করবে। কোনও কোম্পানী তার এজেন্টকে ১ লা আগস্ট, ২০১৯ তারিখ থেকে কোনও পরিস্থিতিতে ১৫% এর বেশি কমিশন প্রদান করবে না। যদি কোনও কোম্পানীকে অবৈধ অনুশীলন করতে দেখা যায়, তবে সংশ্লিষ্ট বীমা কোম্পানীর বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।
একাধিকবার নির্বাচিত বিআইএ এর বর্তমান সম্মানিত সভাপতি জনাব শেখ কবির হোসেন এবং আইডিআরএ এর বর্তমান মাননীয় চেয়ারম্যান ডঃ এম মোশাররফ হোসেন এফসিএ বীমাশিল্প উন্নয়নে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। অতিসম্প্রতি আইডিআরএ কর্তৃক প্রদত্ত সকল সার্কুলারসমূহের পরিপূর্ণ বাস্তবায়নকল্পে বিআইএ সকল নন-লাইফ বীমা কোম্পানীর চেয়ারম্যান এবং মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তার সমন্বয় বেশ কয়েকটি সভার আয়োজন করেছেন। ছোট ছোট কোম্পানীর স্বার্থ রক্ষায়, এজেন্ট কমিশনের কারনে যেন ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত না হয় অথবা কোন কোম্পানী ব্যবসা না হারায় অথবা আরেক কোম্পানীর ব্যবসা যেন অন্য কোম্পানী না নিয়ে যায়, সেদিকে খেয়াল রেখে বিআইএ কিছু পিরিয়ডের জন্য একটি “Gentleman’s Agreement” পরিপালন করার পরামর্শ দেন। পাশাপাশি, গ্রাহকদেরকে কমিশনের ব্যাপারে সচেতন করা এবং বীমা কোম্পানীতে কর্মরত সকল কর্মকর্তাদের অবহিত করার জন্য বিআইএ এবং আইডিআরএ কর্তৃক পৃথক পৃথক ভাবে বেশ কিছু জাতীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি আকারে প্রকাশ করা হয়।
প্রায় পাঁচ মাস পর্যবেক্ষনের পর বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ যখন অনুধাবন করতে পারে যে, এজেন্ট কমিশনের উপর অগ্রিম কর কর্তন নিয়ে একটি বিভ্রান্তি দেখা দিচ্ছে, ঠিক তখনই কমিশন বিভ্রাট এবং বীমা ব্যবসায় শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য কর্তৃপক্ষ গত ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ইং তারিখে সার্কুলার নং- নন-লাইফ ৭৫/২০২০ জারি করে। সেখানে উল্লেখ করা হয়,“শুধুমাত্র বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষের লাইসেন্সধারী এজেন্টকে ৫% অগ্রিম কর কর্তন করে ১৪.২৫% কমিশন পরিশোধ নিশ্চিত করার স্বার্থে, ১লা মার্চ ২০২০ তারিখ থেকে নন-লাইফ বীমা কোম্পানীসমূহে ব্যবসা আহরনের নিমিত্ত সকল উন্নয়ন কর্মকর্তাগণকে কমিশনের ভিত্তিতে বীমা এজেন্ট হিসেবে পদায়ন করতে হবে। নন-লাইফ বীমা কোম্পানীসমূহের বেতন ভাতা (Salary and allowance) খাতে বাৎসরিক ভিত্তিতে নীট প্রিমিয়ামের উপর ১০% এর বেশি ব্যয় করা যাবে না।” সার্কুলারটি পরিপালনের সুনির্দিষ্ট তারিখ থাকলেও উন্নয়ন কর্মকর্তাগণকে এজেন্ট হিসেবে রূপান্তরের প্রক্রিয়া যৌক্তিকভাবে সম্পন্ন করার স্বার্থে, পরবর্তীতে ধাপে ধাপে বেশ কয়েকবার সময়সীমা বৃদ্ধি করা হয়েছে।
নন-লাইফ বীমাখাতে কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনেকগুলো পদক্ষেপ নেয়া সত্ত্বেও কমিশন সংক্রান্ত বিষয়ে শৃঙ্খলা সম্পূর্নরূপে নিশ্চিত হচ্ছে না বিধায় এ খাতে শৃঙ্খলা আনয়নের স্বার্থে বীমা আইন ২০১০ এর অধীনে বীমা এজেন্ট নিয়োগ ও নিবন্ধন প্রবিধানমালা গেজেট আকারে প্রকাশিত না হওয়া পর্যন্ত নন-লাইফ বীমাখাতে ব্যবসা অর্জন বা সংগ্রহের বিপরীতে ১৫% বীমা এজেন্ট কমিশন প্রদান সংক্রান্ত সার্কুলার নং নন-লাইফ ৩২/২০১২, তারিখ ১ এপ্রিল ২০১২ এবং নন-লাইফের কমিশন হার সংক্রান্ত জারিকৃত অন্যান্য নির্দেশনাবলী পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত স্থগিত করে গত ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ তারিখে প্রদত্ত সার্কুলার নং- নন-লাইফ-৮৪/২০২১, এর ক্রমিক নং-(২) অনুযায়ী “নন-লাইফ বীমাখাতে ব্যবসা অর্জন বা সংগ্রহের বিপরীতে ১৫% (পনের শতাংশ) এর পরিবর্তে ০% (শূন্য শতাংশ) নির্ধারন করা হলো,” যা ১ মার্চ ২০২১ তারিখ থেকে কার্যকর করা হয়েছে।
বর্তমান বিদ্যমান কোভিড-১৯ মহামারীর কারনে অনেক ছোট ও মাঝারী আকারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এবং দেশের শিল্প বানিজ্যে আমদানীর পরিমান হ্রাস পাওয়ায় বীমা পলিসির সংখ্যা কমে গিয়েছে এবং রিভিনিউ হ্রাস পেয়েছে। এদিকে মোটরযান বীমায় 3rd Party Insurance গ্রহন অত্যাবশ্যকীয় না থাকায় এবং Comprehensive Insurance পূর্ণাংগ ভাবে কার্যকরী না হওয়ায় বিগত বছরগুলির তুলনায় এ বছর বীমা কোম্পানীর রিভিনিউ কিছুটা সংকোচন হয়েছে।
এদিকে এজেন্ট কমিশন শূন্য শতাংশ করার পরও কিছু কিছু বীমা কোম্পানী কমিশন প্রদান করে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে গ্রহকমুখে প্রচলিত আছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের ১৫ শতাংশের অধিক কমিশন দেয়া বন্ধ এবং আইডিআরএ সার্কুলার অনুযায়ী ব্যাংক হিসাব সংক্রান্ত সকল বিষয়ে সহযোগিতার সম্মতি দেয়া সত্ত্বেও কিছু কিছু ব্যাংক কর্মকর্তার নিকট হতে কমিশন প্রদান বন্ধে সহযোগিতার অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। যে সমস্ত বীমা কোম্পানী সততা ও নিষ্ঠা এবং আইডিআরএ কর্তৃক প্রদত্ত বিধি নিষেধ মেনে ব্যবসা পরিচালনা করছে, তাদের পক্ষে নতুন গ্রাহক আনয়ন দুরের বিষয় বরং পুরাতন গ্রাহকদেরকে ধরে রাখা সম্ভব হচ্ছে না।
অপরদিকে Unethical Competition এর কারনে অনেক বীমা কোম্পানীর ব্যবসা কমে যাচ্ছে কিন্তু তাদের Management Expenses বৃদ্ধি পাচ্ছে যা, ”নন-লাইফ ইন্স্যুরেন্স ব্যবসা ব্যবস্থাপনা ব্যয়ের সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারনী বিধিমালা, ২০১৮” এর ব্যতয় ঘটছে এবং বছর সমাপ্তিতে তাদের মুনাফা অতিমাত্রায় হ্রাস পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
অতএব, বাংলাদেশে বীমা শিল্পের বিকাশ কল্পে এবং রুগ্ন প্রতিযোগিতা বর্জন করে সম সহযোগিতামূলক বীমা শিল্প প্রতিষ্ঠায় সকলকে একযোগে একই নীতিতে অগ্রসর হতে হবে। সর্বশেষে, গত ০৪/০২/২০২১ইং তারিখে কর্তৃপক্ষ কর্তৃক জারিকৃত সার্কুলার নং- নন-লাইফ-৮৪/২০২১ যথাযথ প্রতিপালন ও অনুসরন করার জন্য সকল উন্নয়ন কর্মকর্তাসহ বীমা কোম্পানীর উর্দ্ধতন নির্বাহীদের এবং বীমা সেবা গ্রাহকদের আরও সচেষ্ট হতে হবে।


রিটেলেড নিউজ

চার্টার্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৮ বছর পেরিয়ে ৯ বছরে পদার্পণ

চার্টার্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৮ বছর পেরিয়ে ৯ বছরে পদার্পণ

Bank Bima Shilpa

বীমা সেবাকে জনপ্রিয় করে তোলার সাথে সাথে উন্নত গ্রাহক সেবার প্রত্যয় বীমা গ্রহণে মানুষের আস্থাও আ... বিস্তারিত

কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সে’র ২১তম বার্ষিক সাধারণ সভা ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত

কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সে’র ২১তম বার্ষিক সাধারণ সভা ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত

Bank Bima Shilpa

 ১০ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন   মোহাম্মদ আবুল বাশার হাওলাদার : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত নন লাইফ  ... বিস্তারিত

এফবিসিসিআই-র নবনির্বাচিত সভাপতি  মোঃ জসিম উদ্দিনকে ন্যাশনাল লাইফ'র পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন  

এফবিসিসিআই-র নবনির্বাচিত সভাপতি  মোঃ জসিম উদ্দিনকে ন্যাশনাল লাইফ'র পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন  

Bank Bima Shilpa

  ডেস্ক রিপোর্ট: এফবিসিসিআই-র নবনির্বাচিত সভাপতি বেঙ্গল গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্প... বিস্তারিত

প্রাইম ব্যাংক ও গার্ডিয়ান লাইফের মধ্যে গ্রুপ বীমা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত

প্রাইম ব্যাংক ও গার্ডিয়ান লাইফের মধ্যে গ্রুপ বীমা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত

Bank Bima Shilpa

ডেস্ক রিপোর্ট: করোনাকালীন সময়ে দেশের বেশীরভাগ কর্পোরেট সংস্থাই স্বাস্থ্য এবং জীবনের নিরাপত্তার... বিস্তারিত

প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান এবং ভাইস-চেয়ারম্যান পুন:নির্বাচিত

প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান এবং ভাইস-চেয়ারম্যান পুন:নির্বাচিত

Bank Bima Shilpa

ব্যাংক বীমা শিল্প ডেস্ক : গতকাল ৩০ মে, ২০২১ তারিখে অনুষ্ঠিত প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটে... বিস্তারিত

গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স’র বার্ষিক ব্যবসা সম্মেলন-২০২১ অনুষ্ঠিত

গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স’র বার্ষিক ব্যবসা সম্মেলন-২০২১ অনুষ্ঠিত

Bank Bima Shilpa

  ডেস্ক রিপোর্ট : পুজিঁবাজারে তালিকাভুক্ত নন লাইফ বীমা কোম্পানী গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এ... বিস্তারিত

সর্বশেষ

ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স’র ৩৩তম বার্ষিক সাধারণ সভা ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত 

ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স’র ৩৩তম বার্ষিক সাধারণ সভা ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত 

Bank Bima Shilpa

১০ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন  নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ননলাইফ বীমা কোম্পানী  ফ... বিস্তারিত

এশিয়া ইন্স্যুরেন্স’র ২১তম বার্ষিক সাধারণ সভা ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত 

এশিয়া ইন্স্যুরেন্স’র ২১তম বার্ষিক সাধারণ সভা ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত 

Bank Bima Shilpa

১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ অনুমোদন  নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ননলাইফ বীমা কোম্পানী &... বিস্তারিত

চার্টার্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৮ বছর পেরিয়ে ৯ বছরে পদার্পণ

চার্টার্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৮ বছর পেরিয়ে ৯ বছরে পদার্পণ

Bank Bima Shilpa

বীমা সেবাকে জনপ্রিয় করে তোলার সাথে সাথে উন্নত গ্রাহক সেবার প্রত্যয় বীমা গ্রহণে মানুষের আস্থাও আ... বিস্তারিত

সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স’র ৩৩তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স’র ৩৩তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

Bank Bima Shilpa

  ১৩.৫ শতাংশ নগদ ও বোনাস লভ্যাংশ অনুমোদন মোহাম্মদ আবুল বাশার হাওলাদার: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ... বিস্তারিত